খেলার মাঠে সবার আগে
Nsports-logo

বুধবার, ১৯শে জুন ২০২৪

৫ দিনের ম্যাচে দেড় দিনেই ইংল্যান্ডকে হারালো ভারত

0

১৯৩৫ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার একটি টেস্ট ম্যাচ এরচেয়েও দ্রুত শেষ হয়। তবে ওই ম্যাচের কম দৈর্ঘ্যের পেছনে ছিল বৃষ্টি আর অল্প রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার করার অদ্ভুত কারণ। আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯৪৬ সালের মার্চে ওয়েলিংটনে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টেস্ট ম্যাচ শেষ হয়েছিল প্রায় ১৪৫ ওভারে।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) গুজরাটের সরদার প্যাটেল স্ট্যাডিয়াম, যার নতুন নাম নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে দিবা-রাত্রির টেস্টে ১০ উইকেটে জিতেছে ভারত। রোহিত শর্মা ও শুবমান গিল ৭.৪ ওভারেই ছুঁয়ে ফেলেন ৪৯ রানের ছোট লক্ষ্য।

উইকেটে কখনও বড় টার্ন পেলেন বোলাররা। কখন বল থামল, কখনও আবার স্কিড করল। বাড়তি বাউন্সও হলো দিন জুড়ে। সব সুবিধাই দুই দলের স্পিনাররা কাজে লাগালেন দারুণভাবে। ১৭ উইকেট পতনের দিনে আরেকটি ব্যাটিং ব্যর্থতায় সিরিজে পিছিয়ে গেছে ইংল্যান্ড।

৩ উইকেটে ৯৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা ভারতের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় কেবল ১৪৫ রানে। রুটের অফ স্পিন ও জ্যাক লিচের বাঁহাতি স্পিনের জবাবই খুঁজে পায়নি স্বাগতিকরা।

ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৬ ওভার ২ বলে ৮ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন রুট। টেস্ট ইতিহাসে স্পিনার হিসেবে সবচেয়ে কম রান দিয়ে ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড এটি। তার আগের সেরা ছিল ৪/৮৭।

লিচ ৪ উইকেট নেন ৫৪ রানে।

৩৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা ইংল্যান্ড আকসার ও অশ্বিনের স্পিনে গুটিয়ে যায় কেবল ৮১ রানে। ভারতের বিপক্ষে দেশটি এই প্রথম টেস্টে একশ রানের নিচে গুটিয়ে গেল। সফরকারীদের দ্বিতীয় ইনিংস টেকে কেবল ৩০.৪ ওভার।

এই ম্যাচে জোফরা আর্চারকে এলবিডব্লিউ করে চারশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন অশ্বিন (৭৭)। টেস্টে তার চেয়ে কম ম্যাচে এই মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন কেবল মুত্তিয়া মুরালিধরন (৭২)।

ছোট লক্ষ্য অনায়াসে ছুঁয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা জোরালো করল ভারত। আর শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে গেল ইংল্যান্ড।

সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্টে ভারত অন্তত ড্র করলেই ফাইনালে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে কোহলিরা। আর ইংল্যান্ড জিতলে ফাইনাল হবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ডের মধ্যে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ১১২

ভারত ১ম ইনিংস: ৫৩.২ ওভারে ১৪৫ (আগের দিন ৯৯/৩) (রোহিত ৬৬, রাহানে ৭, পান্ত ১, অশ্বিন ১৭, সুন্দর ০, আকসার ০, ইশান্ত ১০*, বুমরাহ ১; অ্যান্ডারসন ১৩-৮-২০-০, ব্রড ৬-১-১৬-০, আর্চার ৫-২-২৪-১, লিচ ২০-১-৫৪-৪, স্টোকস ৩-০-১৯-০, রুট ৬.২-৩-৮-৫)।

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: ৩০.৪ ওভারে ৮১ (ক্রলি ০, সিবলি ৭, বেয়ারস্টো ০, রুট ১৯, স্টোকস ২৫, পোপ ১২, ফোকস ৮, আর্চার ০, লিচ ৯, ব্রড ১*, অ্যান্ডারসন ০; আকসার ১৫-০-৩২-৫, অশ্বিন ১৫-৩-৪৮-৪, সুন্দর ০.৪-০-১-১)।

ভারত ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৪৯) ৭.৪ ওভারে ৪৯/০ (রোহিত ২৫*, গিল ১৫*; লিচ ৪-১-১৫-০, রুট ৩.৪-০-২৫-০)।

ফল: ভারত ১০ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৪ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে ভারত

ম্যান অব দা ম্যাচ: আকসার প্যাটেল।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy