খেলার মাঠে সবার আগে
Nsports-logo

রবিবার, ২১শে এপ্রিল ২০২৪

বিপিএল খেলতে ঢাকায় অস্ট্রেলিয়ার সুইপলজিস্ট অ্যালেক্স রস

প্রথমবার বিপিএল খেলবেন অস্ট্রেলিয়ার সুইপলজিস্ট অ্যালেক্স রস

অস্ট্রেলিয়াতে তার পরিচয়টা ‘সুইপলজিস্ট’ হিসেবে। সুইপ শটটা ভালো খেলেন, তাই তার নামের পাশে ধারাভাষ্যকাররা এই উপাধিটা জুড়ে দিয়েছেন। যার আসল নাম অ্যালেক্স রস। সপ্তাহখানেক আগেও যিনি ব্যস্ত ছিলেন বিগ ব্যাশে। তবে তার দল সিডনি থান্ডার প্লে অফে জায়গা করে নিতে পারেনি। বিদায় নিশ্চিতের পরই দুর্দান্ত ঢাকায় খেলার প্রস্তাব পেয়ে লুফে নেন তিনি। ৩১ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান গতকাল ঢাকায় এসেই আজ নেমে পড়েন অনুশীলনে। মিরপুরের একাডেমি মাঠে আজ লম্বা সময় ব্যাটিং অনুশীলন করতেও দেখা গেছে তাকে।

অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘খুবই রোমাঞ্চিত। সবকিছুই খুব দ্রুত হয়ে গেল। আমি এখন দলের সঙ্গে যোগ দিতে পেরে রোমাঞ্চিত। আমি টিভিতে বিপিএল দেখেছি কিছুটা। প্রথম ম্যাচটা ফ্লাইটে বসে দেখেছি। ছেলেরা খুব ভালো খেলেছে। আমি দলের সঙ্গে যোগ দিতে পেরে রোমাঞ্চিত।’

সর্বশেষ লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে ডাম্বুলা অরার হয়ে খেলেছেন রস। সে অভিজ্ঞতা এবার বিপিএলে কাজে লাগাতে চান, ‘আমি আজ নেটে লম্বা সময় ব্যাটিং করেছি। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। আমি শ্রীলঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছি গত বছর। ওইখানে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, তা এখানে কাজে দেবে। অনুশীলন উইকেটে অনেক মিল। তবে আমি দলের খেলোয়াড়দের কাছ থেকে শুনেছি, ম্যাচের উইকেট কিছুটা ভালো।’

বিগ ব্যাশের এবারের মৌসুমেও বেশ কিছু উইকেট স্পিন-সহায়ক ছিল, যা অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যানদের স্পিন-পরীক্ষার মুখে ফেলেছে। রসই বললেন, ‘আমরা এবার বিগ ব্যাশে কিছু ম্যাচে বাজে উইকেট পেয়েছি। কিছুটা অভিজ্ঞতা হয়েছে স্পিন করা বলের বিপক্ষে খেলে, উইকেটও মন্থর ছিল। তবে টিভিতে যা দেখলাম, তার সঙ্গে সব সময় মিলবে না। আমি শুধু এখানে খেলার জন্য উন্মুখ হয়ে আছি।’

এ ধরনের কন্ডিশনের জন্য যে দক্ষতা দরকার, তা অবশ্য রসের আছে। সুইপ শটের জন্য তিনি পরিচিত। এখানেও তা কার্যকর হবে বলে মনে করেন রস, ‘আমার মনে হয়, সুইপ এখানে খুব কার্যকর হবে। আপনি ক্রিজ ছেড়ে খেলতে চাইবেন না খুব একটা। সুইপ ও রিভার্স সুইপ—এভাবে যদি কিছু বাউন্ডারি পাওয়া যায়, সে চেষ্টা করব। বিশেষ করে অল্প রানের ম্যাচে আপনি যদি স্পিনের বিপক্ষে চাপ সৃষ্টি করতে পারেন, তাহলে ভালো। আশা করি, আমি সেটা করতে পারব।’

তবে অন্য সবার মতো রসও সিলেট ও চট্টগ্রামের উইকেটে ব্যাটিং করার জন্য উন্মুখ। বড় রানের ম্যাচ দর্শকেরা দেখতে চান, ক্রিকেটাররাও খেলতে চান। তাঁর মুখেই শুনুন, ‘হ্যাঁ, তা ঠিক। আপনি দলকে সাহায্য করতে চাইবেন, যে করেই হোক। বিশেষ করে ইনিংসের শেষের দিকে চার-ছক্কা মারা, দর্শকদের বিনোদন দেওয়া…আমি এরই মধ্যে কয়েকজনের সঙ্গে অন্য দুটি মাঠ নিয়ে কথা বলেছি। আমি জানি যে ব্যাটসম্যানরা সেখানে খেলতে মুখিয়ে আছে।’

আজ বিপিএলের বিরতির দিন। কাল আবার মাঠে গড়াবে দেশের একমাত্র টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টটি। আর কালই ঢাকার জার্সি গায়ে রস খেলতে নামবেন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy