খেলার মাঠে সবার আগে
Nsports-logo

বুধবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২৪

রংপুর রাইডার্সের হয়ে যোগ দিলেন মুমিনুল

ক্রিকেটাররা তখন বিপিএলের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত। জাতীয় দলের খেলোয়াড়েরা তো আছেনই, দলের বাইরে থাকা অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে সাদা বলের খেলাটাকে ঝালিয়ে নিচ্ছিলেন। মুমিনুল হকও ছিলেন সেই দলে।

একঝাঁক তিন সংস্করণের ক্রিকেটারদের ভিড়ে মুমিনুলকে মনে হচ্ছিল দলছুট। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের ইনডোরে মুমিনুলের সে রকমই এক নেট সেশনে বোলিং করছিলেন তাসকিন আহমেদ। চোট থেকে সবে বোলিং শুরু করেছেন তাসকিন। অন্য সবার মতো তাঁর লক্ষ্য বিপিএল দিয়ে খেলায় ফেরা।

কিন্তু মুমিনুলের? সেদিনের অনুশীলন শেষে তাঁকে এই জিজ্ঞাসাই করা হয় একটু অন্য ভাবে। ইনডোর থেকে বের হতে এক সাংবাদিকের প্রশ্ন, ‘আপনি সাদা বলে খেললেন দেখলাম…।’ মুমিনুল একটু হেসে উত্তর দিলেন, ‘হ্যাঁ, খেললাম। ইচ্ছা হলো তাই।’

মুমিনুল চাইলে সাদা বলে অনুশীলন করতে পারেন। এতে কোনো বাধা নেই। কিন্তু সাদা বলের ক্রিকেটে তিনি ম্যাচ খেলার সুযোগ পান কালেভদ্রে। জাতীয় দলে তাঁর পরিচয় তো সবার জানা—টেস্ট বিশেষজ্ঞ। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ এলে মুমিনুলের ৫০ ওভারের ক্রিকেট খেলার সুযোগ হয়। আর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট? গত দুই বছর বিপিএল ড্রাফটে কোনো দল মুমিনুলকে নেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ দেখায়নি।

মুমিনুল সর্বশেষ বিপিএল খেলেছেন ২০২১-২২ মৌসুমে, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে। লম্বা বিরতির পর এবার বিপিএলে দেখা যাবে মুমিনুলকে, রংপুর রাইডার্সের জার্সিতে। গতকাল রংপুর রাইডার্স এক বিজ্ঞপ্তিতে মুমিনুলকে দলে ভেড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করে।

বিপিএলে ফেরার প্রস্তাবটা হুট করে এলেও মুমিনুল নিজেকে এ জন্য প্রস্তুত করছিলেন অনেক আগে থেকেই। নিজের খেলা সর্বশেষ বিপিএলেই নাকি তিনি বুঝেছিলেন, সাদা বলের খেলায় ধরনটা লাল বলের মতো হলে হবে না। গত বছর প্রথম আলোকেই তিনি এ কথা জানান, ‘এর আগের বিপিএলে যখন খেলেছিলাম, তখন মনে হয়েছিল, সাদা বলে এক রকম খেলতে হবে, লাল বলে আরেক রকম। আমার যত বয়স হবে, আমাকে তত বেশি এই ছোট ছোট জিনিস পরিবর্তন করতে হবে। বল নতুন থাকলে এক রকম, পুরোনো হলে আরেক রকম। স্পিনে এক রকম, পেসে আরেক রকম।’

শট বাড়ানো নিয়েও কাজ করেছেন এই বাঁহাতি। মুমিনুলের বিশ্বাস, শট বাড়াতে পারলে তিন সংস্করণের ক্রিকেটেই তা কাজে লাগবে, ‘কীভাবে শট বাড়ানো যায়, সেই চিন্তা করি। আমি যদি লাল বলে শট বাড়াতে পারি, তাহলে সেটা তো সাদা বলেও কাজে লাগছে। আমার মনে হয় টেস্টের জন্য আরও দু-একটা শট বাড়ানো উচিত।’ মুমিনুলের এই কথাগুলো প্রায় এক বছর আগে বলেছিলেন। এবার বিপিএলে বদলে যাওয়া মুমিনুলের দেখা মিলবে কি না, কে জানে!

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy