খেলার মাঠে সবার আগে
Nsports-logo

বুধবার, ১৯শে জুন ২০২৪

বৃষ্টি-বিঘ্নিত ম্যাচে পাকিস্তানের হার

মাত্র ১২০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ভারতের কাছে ৬ রানে হারে পাকিস্তান। ভারতের বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি পাকিস্তানের ব্যাটাররা।জাসপ্রিত বুমরাহ ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে হন ম্যাচসেরা। ২ উইকেট নিতে হার্দিক পান্ডিয়ার খরচা ২৪ রান। উইকেট না পেলেও মোহাম্মদ সিরাজ ৪ ওভারে দেননি ১৯ রানের বেশি।

১২০ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে দেখে শুনে খেলতে থাকেন পাকিস্তানের ২ ওপেনার ব্যাটার বাবর আযম ও রিজওয়ান। তবে বেশিক্ষণ ঠিকতে পারেননি বাবর আযম।দলীয় ২৬ রানেই বুমরাহর বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন এই ব্যাটার।এরপরেই উসমান খান এবং রিজওয়ান মিলে প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেন।এই ব্যাটার মিলে গড়েন ৩১ রানের জুটি।তবে পানি বিরতির পরেই উসমান খানকে ফেরায় অক্ষর প্যাটেল। ১৫ বলে ১৩ রান সংগ্রহ করেন এই ব্যাটার।পরে আগ্রাসী ব্যাটিং করার চেষ্টা করেন ফখর জামান।তবে হার্দিকের বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ে বেশিক্ষন ঠিকতে পারেননি তিনি।অপরপ্রান্ত তখনও আগলে পাকিস্তানে নির্ভরযোগ্য ব্যাটার মোহাম্মদ রিজওয়ান।বেশ দেখে শুনেই খেলেন তিনি।তবে এইবারও জস্প্রীত বুমহার বোলিং নৈপুণ্যে বোল্ট আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন এই ব্যাটার।আউট হওয়ার আগে এই ব্যাটার করেন ৩০(৪২)রান।শাদাব খান,ইমাদ ওয়াসিম ও ইফতেখাররা কেউই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি।ম্যাচ জয়ের জন্য শেষ ২ ওভারের পাকিস্তানের দরকার পড়ে ২১ রান।তবে জসপ্রীত বুমুরাহ এবং অর্শদ্বীপ সিং এর বোলিং নৈপুণ্যে ১১৩ রানের গুটিয়ে যায় পাকিস্তান।

এইদিন বৃষ্টি বিঘ্নিত দিনে খেলা শুরু হয় নির্ধারিত সময়ের প্রায় ৫০ মিনিট পরে।শুরুতেই টসে জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় পাকিস্তান অধিনায়ক।বোলিংয়ে পাকিস্তানের  শুরুটা ছিলো অসাধারণ। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের বিরাট কোহলিকে সাজঘরে পাঠান নাসিম শাহ।বিরাট করেন মাত্র ৪(৩)রান।অপরপ্রান্তে আগ্রাসী ব্যাটিং করতে থাকেন রোহিত শর্মা।যদিও ইনিংস বড় করতে পারেনি এই ব্যাটার।শাহীন আফ্রিদির শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ১৩(১২) রান করে আউট হন তিনি।ভারতীয় অধিনায়কের বিদায়ের পর দলের হাল ধরেন রিশাভ পন্থ ও অক্ষর প্যাটেল।শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাটিং করেন রিশাভ।তবে দলীয় ৫৮ রানেই বিদায় নেন অক্ষর প্যাটেল। অপরপ্রান্তে সূর্য কুমার যাদবকে নিয়ে এগোতে থাকেন রিশাভ পন্থ। এই দুই ব্যাটের মিলে গড়েন ২২ বলে ৩১ রানের জুটি।তবে দলীয় ১১.২ ওভারে হারিস রউফের শিকার হন সূর্যকুমার যাদব।এরপর আর বেশিক্ষণ ঠিকতে পারেননি রিশাভ পন্থও।আউট হওয়ার আগে এই ব্যাটার খেলেন ৪২ রানের এক অসাধারণ ইনিংস। পরে দুবে,হার্দিক, জাদেজাদের আসা যাওয়ার মিছিলে ১১৯ রানে গুটিয়ে যায় ভারত।মাত্র ৩০ রান তুলতেই ৭উইকেট হারায় ভারত।পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট শিকার করেন নাসিম শাহ এবং হারিস রউফ।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy