খেলার মাঠে সবার আগে
Nsports-logo

রবিবার, ২১শে এপ্রিল ২০২৪

বিপিএল: জামালের ৫ উইকেট, কুমিল্লার জয়

চলতি বিপিএলে টানা চার ম্যাচে জয় পেয়ে উড়তে থাকা খুলনা টাইগার্স পর পর দুই ম্যাচে পেলো হারের তিক্ত স্বাদ। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দেয়া ছোট লক্ষ্যে খেলতে নেমে তাসের ঘরের মতো ভেঙে গেছে খুলনা টাইগার্সের ব্যাটিং লাইনআপ। টাইগার্সদের ৬ ব্যাটারই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৩৪ রানের ব্যবধানে জয় পেয়েছে কুমিল্লা। আমের জামাল একাই শিকার করেছেন ৫ উইকেট।

১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আমের জামালের বোলিং তোপে দ্রুত উইকেট হারাতে থাকে খুলনা। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা খুলনা ৮৮ রানেই হারায় ৮ উইকেট। এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি খুলনা। দশম উইকেটে মুকিদুল ইসলাম ও মোহাম্মদ ওয়াসিমের ১৭ রানের জুটি শুধু হারের ব্যবধানেই কমিয়েছে। শেষ পর্যন্ত ১৮ ওভার ৫ বলে সব উইকেট হারিয়ে ১১৫ রান তুলতে সক্ষম হয় খুলনা। যার ফলে ৩৪ রানের জয় তুলে নেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

খুলনার হয়ে ওপেনিংয়ে নামা এনামুল হক বিজয় ও এভিন লুইস আজ ব্যর্থ ছিলেন নিজেদের জুটিকে বেশিদূর নিয়ে যেতে। দলীয় মাত্র ১৯ রানে বিজেয়ের বিদায়ে ভেঙে যায় এই জুটি। ১২ বলে ১৯ রান করা বিজয় আলিস আল ইসলামের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান সাজঘরে। যার ফলে ১৯ রানেই ভাঙে ওপেনিং জুটি।

বিজয়ের পথ ধরে সাজঘরে ফিরে যান আফিফ হোসেনও। উইল জ্যাক্সের শর্ট বলে শর্ট থার্ড ম্যানে আলিসের হাতে ক্যাচ তুলে ফিরে যান তিনি। তার বিদায়ে ২৭ রানেই ২ উইকেট হারায় খুলনা।

আফিফ হোসেনের পর একে একে সাজঘরে ফিরে যান আকবর আলি ও পারভেজ হোসেন ইমন। আকবর আলি ৮ বলে ৫ রান করে মোস্তাফিজের বলে শর্ট থার্ড ম্যানে তানভিরের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে সাজঘরে। অন্যদিকে ৩ বলে শূন্য রান করে তানভির ইসলামের মিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান পারভেজ হোসেন ইমন। এই দুই ব্যাটারের বিদায়ে ৩৩ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে খুলনা।

৩৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর জুটি গড়েন এভিন লুইস ও নাহিদুল ইসলাম। তবে এই জুটিকে বেশিদূর এগোতে দেননি আমের জামাল। আমের জামালের বলে তাওহীদ হৃদয়ের হাতে ক্যাচ তুলে দেন এভিন লুইস। আউট হওয়ার আগে করেন ১৪ বলে ১০ রান।

এভিন লুইসের বিদায়ের পর মোহাম্মদ নেওয়াজের সঙ্গে জুটি বাঁধেন নাহিদুল ইসলাম। তবে দলীয় ৬৭ রানে মোহাম্মদ নেওয়াজের বিদায়ে ভাঙে তাদের ১৮ রানের জুটি। আমের জামালের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ১৩ বলে ৭ রান করা নেওয়াজ।

মোহাম্মদ নেওয়াজের পর সাজঘরে ফিরে যান ফাহিম আশরাফ ও নাহিদুল ইসলাম। ফাহিম ১৩ বলে ১৩ রান করে আমের জামালের শিকার হয়ে ফিরে যান সাজঘরে। একই ওভারে আমের জামালের বলে ডিপ মিড উইকেটে তাওহীদ হৃদয়ের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান নাহিদুল ইসলাম।

এই দুই ব্যাটারের বিদায়ের পর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি খুলনা। দশম উইকেটে মুকিদুল ইসলাম ও মোহাম্মদ ওয়াসিমের ১৭ রানের জুটি শুধু হারের ব্যবধানেই কমিয়েছে। শেষ পর্যন্ত ১৮ ওভার ৫ বলে সব উইকেট হারিয়ে ১১৫ রান তুলতে সক্ষম হয় খুলনা। যার ফলে ৩৪ রানের জয় তুলে নেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস: ২০ ওভারে ১৪৯/৭ (রিজওয়ান ২১, লিটন ৪৫, জ্যাকস ২২, তাওহিদ ১৬, খুশদিল ৪, জাকের ১৮*, মাহিদুল ১০, জামাল ০, তানভীর ১*; নাহিদুল ২–০–৫–০, নাসুম ৪–০–২১–২, ওয়াসিম ৪–০–৩৭–১, নেওয়াজ ৩–০–৩১–০, আশরাফ ৪–০–২৫–২, মুকিদুল ৩–০–২৮–০।

খুলনা টাইগার্স: ১৮.৫ ওভারে ১১৫ (এনামুল ১৯, লুইস ১০, আফিফ ৫, আকবর ৫, পারভেজ ০, নাহিদুল ২১, নেওয়াজ ৭, আশরাফ ১৩, ওয়াসিম ২৩, নাসুম ০, মুকিদুল ৪*; তানভীর ৩.৫–০–২৯–২, আলিস ৪–০–৩০–১, জ্যাকস ৪–০–১৪–১, মোস্তাফিজ ৩–০–১৭–১, জামাল ৪–০–২৩–৫)।

ফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস ৩৪ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: আমের জামাল।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy